যে কোনো সময় লেখা পোস্ট করা যায় । লিঙ্ক - https://webtostory.com/to-post-the-text/

অপেক্ষোয়মান_মৃত্যুর_পাশে মোর্শেদা চৌধুরী এ্যানি বরুড়া, কুমিল্লা।

 

story and article


আমার অপেক্ষয়মান মৃত্যুর পাশে শেষ পর্যন্ত কেউ থাকলোনা! শুধুই থাকলো ফুল-পাখির কল-কাকুলীতে ভরা স্নিগ্ধ-সকালের ফুটন্ত গোলাপ,বাহারী পাতাবাহার আর জবা,জুঁই,চাঁপা,রজনী গন্ধা,হাসনাহেনা,করলা,

লাউ,সীম,কুমড়া,পুঁই,আদা,এ্যালোভেরা,কাঁচালঙ্কা,

ক্যাপসিকাম,এবং লেবুগাছের সবুজ পাতাগুলো ঝাপসে গিয়ে আমার দিকে নির্বাক চেয়ে আছে একপলকে।

আর প্রার্থনা করছেঃ নাগো না, তুমি যেয়োনা আমাদের একা রেখে, কে আমাদের যত্ন নেবে তোমার মতো করে? কে আর আমাদেকে জৈবসার,ও পানি দিয়ে সতেজ রাখবে? কে আমাদের আগাছা পরিষ্কার করবে?

আমরাতো জানি তোমার অপ্রাপ্তি গুলোঃ তুমি শীতের সকালের শিশিরভেজা তরুলতা দেখছো কিন্তু ছুঁইয়ে দেখনি। তুমি দুপুরের তৃষ্ণার্ত মানুষের হাহাকার দেখেছো,

কিন্তু শত প্রতিকুলতায় থেকে তাঁদের তৃষ্ণা মেটাতে পারোনি।

তুমি দক্ষিণ কোণ থেকে দেয়ে আসা আচমকা দমকা হাওয়ায় উদ্বেলিত হয়েছো বহুবার; তবে নিজেকে সামলাতে পারনি।

তুমি হিম-শীতল বাতাস দেখেছো কিন্তু জড়িয়ে রাখতে জাননি। তুমি নীল আকাশের স্নিগ্বতাপূর্ণ আলোর আভা দেখেছো কিন্তু নিজেকে আলোকিত করতে পারনি। তুমি সেই দূর্গম-পাহাড়ের চূড়ায় আরোহণ করতে চেয়েছিলে কিন্তু পেছন থেকে কারো কারো কু-দৃষ্টি পড়ে, স্ব-জুড়ে ধাক্কা মেরে ফেলে দিল মনে হয়েছিল এক ঝাঁক প্রেতাত্মারা পিছু নিয়েছিলো !

আগ্নেয়গিরির অগ্ন্যোৎপাতের লাভায় পোড়তে দেখেছি বহুবার তবে শত্রু পক্ষের অট্টহাসিতে নিঁথুয়া পাথাড়ে হাবুডুবু খেয়েছো! গোধূলি লগ্নের ডুবে যাওয়া সুর্যাস্ত দেখেছো তবে তাঁর রঙে নিজেকে সাজাতে পারনি!

ঝুম বৃষ্টি শেষে রংধনুর সাত রং দেখেছো কিন্তু নিজেকে কৃষ্ণাকালো রঙ্গে রাঙ্গিয়েছো। প্রিয়জনের মুখে বহুবার রেগেমেগে বলতে শুনেছো তোমাকে তাঁর ভাললাগেনা। “নিজের ইচ্ছে চলে যা-না আমার জীবন থেকে।” অনেকে তো করোনার মতো মহামারী রোগে অকাল মৃত্যুর লাশে পরিনত হচ্ছে তোর কেনো এ রোগ হচ্ছেনা?

হালকা অসুখে কি ডাক্তারের নিকট ছুঁটে যেতে হয় নানান বাক্যালাপ শুধু তুমি তাঁর কাছে অপ্রিয় ছিলে বলে তাইনা?

নিন্দুকেরা ব্রু কুচকীয়ে রক্ত লাল চোখে নিন্দার চোখে ঘৃনা করেছে তাও তুমি প্রতিবাদ করোনি। সব সময় তাঁদের আঘাতে স্পর্শ কাতর জবাব না দিয়ে তাঁদের শুভ কামনা করতে।

পরিশেষে গাছগাছালিরা বলে তোমার করুণ ভীষণ যন্ত্রণা আর দেখতে চাইনা যাও আল্লার নিকট সেখানে গিয়ে অন্তত স্বস্তির নিঃশ্বাসটুকু ফেলতে পারবে।

পৃথিবীর স্বার্থপর কীটপতঙ্গের আঘাতগুলো বড় কষ্টের, বড় বেদনাদায়ক!!!

*********************************************

তাং ১৮/০৭/২০২১ রোজ- রবিবার

স্থান-স্বরনিকা হাউজ

সমযঃ সকাল ৮ঃ৩০

#banglasahitya #bangladesh

Post a Comment