যে কোনো সময় লেখা পোস্ট করা যায় । লিঙ্ক - https://webtostory.com/to-post-the-text/

নিজেই নিজেকে করেছি একটা কঠিন প্রশ্ন দূরত্বের মায়া মৃগ দূরত্বের দীর্ঘ ছায়ায়

হয়তো অসভ্য আমি কারো বিচার মধ্যে। যাক তো ওসব কথা আমি কলের গান শোনাই এখন------ধানকল নয়। চালকল নয় ------- আটা তেল ----- ডালকল ও তো নয়। জলকল ? জ
Story and Article



রামপ্রসাদ চক্রবর্ত্তীর কবিতা


দূরত্বের দীর্ঘ ছায়ায়
রামপ্রসাদ চক্রবর্ত্তী

শব্দ ভাঙছে -- ভাঙার শব্দে পাঁজর ভাঙছে
শিষ্ট হ্নৎযন্ত্রে বিকল অনুভব কিষ্ট যন্ত্রনায়।
পাশাপাশি আমি তুমি সে ও সখা
আমরা কেউ কি আছি মনের কাছাকাছি?
তীব্র উত্তাপ শরীরে আমার দিনরাত্রির অরন্ধন
অনাহারে প্রানে উঠে কি অব -- সাধের ঝঞ্ঝা!
নিজেই নিজেকে করেছি একটা কঠিন প্রশ্ন
দূরত্বের মায়া মৃগ দূরত্বের দীর্ঘ ছায়ায়
বিচার বলে কি জানো? আমরা কেউ কারো নয়।
বাঁচার অভ্যাসে একা নিদারুণ ভালো
মন ভাঙছে --- ভাঙতে ভাঙতে নি: শেষ হয়।।


-----------------------------


কবিতা : পক্ষ ভেদের বিবর্ণ বর্ণনায়
কলমে : রামপ্রসাদ চক্রবর্ত্তী

January 29 / 2022
হয়তো অসভ্য আমি কারো বিচার মধ্যে।
যাক তো ওসব কথা আমি কলের গান শোনাই এখন------ধানকল নয়। চালকল নয় -------
আটা তেল ----- ডালকল ও তো নয়।
জলকল ? জলকল নয় ঠিক ই
তবে পাঁচ পাঁচটি ফোনকলের সাথে
জলের কলের কিছু মিল তো রয়েইছে!
সত্যি বলছি -- পাঁচ ফোনকল অপ্রত্যাশিত জীবন্ত
জলের মতোই জীবনের ঘুমন্তস্বপ্ন ছিল ভরাট।
ছিল অগাধ বিশ্বাস আর ভালোবাসার আকুতি।
কিন্তু পক্ষ ভেদের প্রতিষ্ঠিত মিথ্যা লাভ ক্ষতির
বর্ণনায় আমিই হয়ে গেলাম দূর্গন্ধ ময় বিচ্যুতি!!
বৃথাই চেষ্টা সব। সব কল ই মিস্ কল।
--------------------------


তোমার তপোবনের ক্রন্দন
রামপ্রসাদ চক্রবর্ত্তী

মনের আকাশে আমার ভেসে আসে ঐ
পুষ্পিত তপোবনে তোমার উঠেছে ক্রন্দন রোল
ফুলে ফুলে কানাকানি নানাবিধ গুঞ্জরণ------
চলে যাবে যে ওরা অন্য কোন শীত ঘুমের দেশে
নতুন্তের সন্ধানে যাবে এসেছে বার্তা অবশেষে ।
ফুলে ফুলে সমাদৃত প্রজাপতি ভ্রমরের আলিঙ্গন
আর পাখি দের কলরব হ্নদয়ে যত্নে রেখেছি---
সারাদিন ঐ তপোবন দেখি যে কতোবার
তবুও ভরে না মন- ভাবে মন দেখি শতবার
ভালো বাসি তো--- অনুভবে কষ্ট হয় যে আমার।


ভনিতা করো না
রামপ্রসাদ চক্রবর্ত্তী

অন্ধ তো নয় আমি আছে দূরদৃষ্টি
তোমার জন্যে সাজবো নাকি অন্ধ?
অন্ধজনে দেবে আলো-----------
তাহলে থেকো না লুকিয়ে আর
আলো যদি দিতেই চাও-- তোমার চোখের আলো!
দাও দাও। আলো দাও -- ভনিতা করো না।
--------------------------


 মুগ্ধ নিমগ্ন তায়
রামপ্রসাদ চক্রবর্ত্তী

মুগ্ধ নিমগ্ন তায় তার
অপরূপ লাবণ্য রাশি।
চাতক প্রানে আমার
বাজায় নীরব বাঁশি ।
তার চোখের আলোয় ভাসি ।
আমি যে তাকেই ভালোবাসি।
তারই জন্য মন আমার কাঁদে মনোবেদনায়
তারই জন্য হাসেও মন হাহাকারের হাসি।
তারই জন্য আমি তাকেই ভালোবাসি।
---------------------------


হাসিকান্নায় ভালোবাসায়
রামপ্রসাদ চক্রবর্ত্তী
শৃঙ্গার প্রান্ত ও অন্তের চতুর পাগলামি
কামনা কাতর শরীর সরস্ব ভন্ডামি।
ওখানে ভালো মনের বাঁসা নেই স্বপ্ন ও থাকে না।
আসলে স্বপ্নকে মনেতে বাঁচিয়ে রাখতে হয়
একা একা স্বপ্ন খুব বাঁচে। স্বপ্নেই বেঁচে থাকে।
হ্নদয়ে সততায় পবিত্রতায়---- বন্ধুর পথে
শিখতে হয় বাঁচিয়ে রাখতে স্বপ্ন --- ভালোবাসায়।
স্বপ্নেই কাঁদে মানুষ স্বপ্নেই হাসে ভালোও বাসে।
তোমার কল্পিত কলেবরে পেয়েছি আস্কারা
হেলায় হারাবো না তোমাকে দিবারাত্রির স্বপ্নে
তোমার চোখেই দেখি আমি অন্ধকারে চাঁদ তারা।।
--------------------------



তুমি জীবনে না থাকলে

রামপ্রসাদ চক্রবর্ত্তী
আকাশ বিনা চাঁদ কি আছে!
দু: খ বিনা সুখ --------------
আর সুখ বিনা অসুখ!
সুখ আর অসুখের থোড়াই করি কেয়ার
তুমি বিনা আমার জীবন যে ছারখার।
প্রিয় আমার জীবন বাহারি সাজা
আনন্দ সংহার --- কি মজা ! কি মজা!



আরো কতো দূর
রামপ্রসাদ চক্রবর্ত্তী

আরো আরো কতো দূরে
ষ্টেশন হ্নদয় পুর।
ও চেকার দাদা বকছো কেন ?
টিকিট নেই তো কি আর করা!
কবিতায় গল্পেই ---- -----
লুকিয়ে আমার উঞ্ছ বৃত্তির ক্ষনিকের জীবন।
আচ্ছা--- বন্ধন মুক্তির পথ বলতে পারো?
তাহলে তোমার সঙ্গেই যাবো -------
জেলখানা শুঁড়িখানা কিংবা নর্দমা
যেখানে ইচ্ছে তোমার সঙ্গে নিয়ে চলো।
কি বললে তুমি ------- সঙ্গে নেবে না?
স্বর্গের আগের ষ্টেশনে নামবে তুমি
যেখানে সেই পারিজাত বন মনের কানন?
তা বেশ যাও যাও -- সুখের চাওয়াতে নেই আমি
দূর্যোগ জয় করা মানুষের মন বুঝবে না তুমি
বাছাধন--- তার থেকে বরং বলে দাও -------
আরো কতো দূরে ষ্টেশন হ্নদয় পুর।
--------------------------


অবাঞ্ছিতের অযথা জীবনে
রামপ্রসাদ চক্রবর্ত্তী

প্রিয় অতি মানুষ টাকে
লাগে যদি কখনো অচেনা
অন্ত রীনা ঝরণা ধারা তো আমার
অলীক কল্পনার নারী নদীর স্রোতের সুপ্তি
সে কিন্তু না ---- সে তো নয় ই ----- ---
অন্তর মর্যাদায় অভিষিক্তা সে আমার বাস্তব।
সন্ধির মুক্তি অবগাহনে প্রশ্বস্ত অমরাবতীর পথ।
সত্যি! মধ্য রাত্রির মাতাল চরিত্রের গায়ে বাহারি
এক সুন্দর কলঙ্কের নক্সি কাঁথা! বা! বা! বা!
প্রিয় মানুষটির জন্যে আছি তো আমি নত
আর কি হতে পারি ---------
অবশ্য বলির পাঁঠাও হতে পারি --- তবে
অবাঞ্ছিতের প্রান অযথা নেবেন কি মা কালী ?
------------------------



তোমারই চোখের আলো
রামপ্রসাদ চক্রবর্ত্তী

ভালোবেসে যদি দাও ----
সব নেবো! যা যা দেবে সব।
দূখসুখ ভালোবাসা অভিমত অভিমান
অপমান অসম্মান উপেক্ষা --- যা দিয়েছো নিয়েছি
দাও দাও আরও নেবো --- যা যা দেবে সব।
শুধু আত্ম সম্মান টুকু দিতে পারবো না প্রিয়
যা কিনা ভালোবাসায় তোমারই হ্নদয়ে
রেখেছো লুকিয়ে -- খুঁজে আজও পাই নি।
তা হলে কী দেবো আমি তোমাকে বিনিময়ে?
দিনান্তের সূর্যের কাছে -- নতজানু করজোড়ে
চেয়েছি আমি তোমাকে ভালবাসির ছিন্ন বীনায়
তোমারই জন্যেই---- তোমার চোখের আলো - --
ভালো সব ভালো শুধু বোধহয় আমি ছাড়া।
----------------------------


শ্রী রামকৃষ্ণ স্মরণম:
---------------------
কল্প বৃক্ষ মূলে দন্ডায়মান হে
মূর্তিমান পরমপুরুষ ভগবান হে
শ্রী রামকৃষ্ণ সারদাং দেব হে
হ্নদয়ানন্দ বিবেকানন্দ পরম শিব হে
শ্রী শ্রী রামকৃষ্ণ পরমহংস দেব হে
প্রণমি জয়তু শ্রী রামকৃষ্ণ বাঞ্ছাকল্পতরুম হে।।
------- রামপ্রসাদ চক্রবর্ত্তী।



ছায়ায় মায়ায়
রামপ্রসাদ চক্রবর্ত্তী

মমতা মায়ায় চোখের আলো
চোখের ছায়ায় চোখের মায়ায়
দাঁড়িয়ে দেখি ---- দৃষ্টি সুখের নৈস্বপ্নে
ভালোবাসি --- ভালোবাসি যে তোমাকে।




প্রান্তর শেষে
রামপ্রসাদ চক্রবর্ত্তী

ধৈর্য্যের শেষ প্রান্তে নৈ: শব্দের আস্তরন।
ঝরাফুল না জানে অন্ত তার -- যাবে কোথায়!
ছন্দ বিহীন কবিতায় কোলাহল নিরন্তর
সুডৌল যুগল পাহাড়ে--------
ঢাকা পড়েছে চাঁদ যুগ যুগান্তর
আলো আঁধারের ফাঁদ ------ নষ্ট বিশ্বাসে
চরাঞ্চল। নীরব উৎসব শেষে -------
ঝরা ফুলের চাদরে ঢেকে নিয়ে আলোর মুখ
আমার ভয়ের পাখি শীত ঘুমে ঘুমিয়ে পড়েছে।
প্রস্তর প্রান্তর শেষে ঐ তো মহা শ্মশান !
আমার শেষ ঠিকানা বোধহয় -- ছন্দেই লেখা।
----------------------------



কবিতা : বরবাদ
কলমে : রামপ্রসাদ চক্রবর্ত্তী
রচনা কাল : 29 জানুয়ারি 2022
ভালো তো লাগে বেশ--- ভোরের আলো
নিস্তরঙ্গ অস্ত রাগের যাত্রী আমিও আজ।
ভালোবাসায় সুসম্পর্ক লজ্জাতে কাটা যায় না মাথা
নিলজ্জ আমি ক্ষ মাও চেয়ে নিয়েছি বারবার।
যদিও আমি নোই কোনো তীর্থের কাক
বন্ধুর পথ যে আমার তার হরেক বাঁক।
আঁকা বাঁকা পথেই আমার স্বজন সখার বাড়ি
কবে যেন ভুল করে বলেছিল-- তোমার সাথে আড়ি
পথ চেয়ে বসে থাকা দেখা যে মেলে না তার
ক্ষনিকের জীবন আমার ক্রমশঃ হচ্ছি বরবাদ।
--------------------



Post a Comment