যে কোনো সময় লেখা পোস্ট করা যায় । লিঙ্ক - https://webtostory.com/to-post-the-text/

জিকরাউল হক

বর্তমান শিক্ষা সমস্যা ও উত্তরণ: মুহাম্মদ জিকরাউল হক, আনন্দ প্রকাশন, সি ৮, কলেজ স্ট্রিট মার্কেট(দ্বিতল), কলকাতা-৭০০০০৭ মূল্য-১৫০ টাকা, প্রচ্ছদ- আফসার

 

webtostory
জিকরাউল হক

বর্তমান শিক্ষা ভাবনায় নানা অন্তরায় ও সমাধান অন্বেষণ 

🤾

তৈমুর খান 

🌺


 সাহিত্যিক ও শিক্ষক মুহাম্মদ জিকরাউল হক সম্প্রতি বাইশটি প্রবন্ধ-নিবন্ধ নিয়ে 'বর্তমান শিক্ষা সমস্যা ও উত্তরণ'(প্রথম প্রকাশ কলকাতা বইমেলা ২০২২) গ্রন্থটিতে তাঁর প্রতিবেদনের ডালি সাজিয়েছেন। একজন শিক্ষক হিসেবে এবং সমাজ সংগঠক ভাবুক হিসেবে বর্তমান শিক্ষা ব্যবস্থার বিভিন্ন অন্তরায় ও তার সমাধানগুলি নিয়ে আলোচনা করেছেন।


প্রতিটি আলোচনাতেই যুক্তির প্রেক্ষিত যেমন দর্শিয়েছেন, তেমনি সাইকোলজিক্যাল দিক থেকেও আর্থসামাজিক ব্যাপারটির উল্লেখ করেছেন। প্রকৃত শিক্ষা কী তা এখনো সবার জানা নেই, অথচ বেশিরভাগ মানুষ পরীক্ষায় নাম্বার প্রাপ্তিকেই শিক্ষার মানদণ্ড ভাবে। লেখক তা যেমন খণ্ডন করেছেন, তেমনি ড্রপ আউট বা শিক্ষা ত্যাগ করার বিভিন্ন বিষয়গুলিরও বাস্তব ভিত্তি অন্বেষণ করেছেন। গ্রন্থটি এই কারণেই শুধু শিক্ষার সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিদেরই নয়, সমাজের সকল স্তরের মানুষের কাছেই অবশ্য পাঠ্য বলে মনে করি।


   এই গ্রন্থের প্রতিটি লেখাই 'কলম' দৈনিকসহ বিভিন্ন দৈনিকে প্রকাশিত হয়েছে। একজন শিক্ষক হিসেবে ছাত্র-ছাত্রীর সঙ্গে শিক্ষকের দূরত্ব কীভাবে সৃষ্টি হয় তা যেমন অনুধাবন করেছেন, তেমনি শিক্ষক-শিক্ষিকা কেন ছাত্র-ছাত্রীর কাছে শ্রদ্ধা হারান তারও মনস্তাত্ত্বিক বিশ্লেষণ করেছেন। অতীতের শিক্ষা ব্যবস্থার সঙ্গে বর্তমানের শিক্ষাব্যবস্থার ফারাক কতখানি, এবং কীভাবে তা জীবনবিমুখ বা পুঁথিগত চার দেওয়ালে বন্দি শিক্ষা হয়ে উঠেছে—তার কারণগুলিও যথাযথ উপস্থাপন করেছেন।


শিক্ষার মূল্যায়ন পদ্ধতি বিষয়টিও কতখানি যুক্তিযুক্ত এবং প্রতিটি ক্লাসের সিলেবাস উপযোগী কিনা সেসব নিয়ে নানা বিতর্কের অবকাশ তিনি দেখতে পেয়েছেন। বিদ্যালয়গুলিতে কম্পিউটার ও ইন্টারনেট সংযোগ থাকায় বই পড়ার গুরুত্বও যে ফুরিয়ে যায়নি তা তিনি জোর দিয়ে বলেছেন। শিক্ষকদের কথা বলতে গিয়ে সমানভাবে তিনি অভিভাবক-অভিভাবিকাদের দায়িত্ববোধ সম্পর্কেও সচেতন করেছেন। কেননা আদর্শ, মূল্যবোধ, তৎপরতা, দৃষ্টিভঙ্গি প্রভৃতি পিতামাতার কাছ থেকেই তার সন্তানেরা লাভ করে।


তাই নীরবে পিতা-মাতাকেও তাদের সন্তানের কাছে অনুকরণযোগ্য করে তুলতে হয়। বহু বদভ্যাস ছাত্র-ছাত্রীরা তাদের গৃহেই শিক্ষা পায়। এই কারণেই সেই সচেতনতার জন্য পিতা-মাতাকে লক্ষ রাখতে হয়। শিক্ষকরাও গা-ছাড়া বা দায়িত্ব এড়ানো ভাব কখনো যেন না দেখান। এ বিষয়ে ও লেখক সতর্ক করেছেন। বরং ছাত্র-ছাত্রীদের উৎসাহিত করার জন্য শিক্ষার বাইরেও অনেক কাজ করতে হয়। ছাত্র-ছাত্রীদের নিজ সন্তানতুল্য ভাবতে হয়। রেজাল্ট ভালো করিয়ে দেওয়া বার নাম্বার বাড়িয়ে দেওয়া শিক্ষকের কাজ হতে পারে না।


   শিক্ষাকে জয়ফুল লার্নিং বা লার্নিং উইদাউট বার্ডেন করে তোলার চেষ্টা হয়েছে। সেক্ষেত্রে সিলেবাস কমিয়ে শিক্ষাকে জীবনমুখী করে তোলার জন্য পাশ-ফেল প্রথাকেও তুলে দেওয়া হয়েছে। নো ডিটেনশন চালু করে সরকার উৎসাহিত করার চেষ্টা করেছে। কিন্তু এর ফল কি হয়েছে? লেখক এ বিষয়টিও অনুসন্ধান করেছেন। এর ফলে ছাত্র-ছাত্রীরা বইবিমুখ হয়ে উঠেছে। পরীক্ষা নিয়েও তারা ভাবিত নয়। নাম্বার নিয়ে তো নয়ই।


ফলে একটা বিশৃঙ্খলা এবং পরীক্ষার নামে প্রহসন শুরু হয়েছে। লেখক আশঙ্কা করেছেন স্বাভাবিকভাবেই শিক্ষা বেসরকারিকরণের দিকেই এগিয়ে চলেছে। কারণ এই ডামাডোলের স্কুলে লেখাপড়া করে সুশিক্ষা সম্ভব নয়। প্রতিযোগিতার মানসিকতাও তৈরি হবে না।


 নতুন পরীক্ষা পদ্ধতিতে গণিতের ক্ষেত্রেও মৌখিক চালু হয়েছে। এটা যে আদৌ একটা প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ তা নয়। এটা যে হাস্যকর ব্যাপার তা বলাই বাহুল্য। প্রোজেক্টের জন্য নির্ধারিত নম্বর যা পাইয়ে দেবারই শামিল। সেইসঙ্গে ভর্তি প্রক্রিয়া, ছাত্র-ছাত্রীদের নিজস্ব ভালোলাগা বিষয়কে গুরুত্ব না দেওয়া, শিক্ষকদের শাস্তিদান থেকে বিরত রাখা, ছেলেমেয়েরা না পারলেও নাম্বার বাড়িয়ে দেওয়া সব বিষয়গুলি বর্তমানে শিক্ষার অন্তরায়।


শিক্ষা যে নাম্বারের মধ্যে বন্দি নয়, প্রকৃত মানুষ হওয়া সেটা না বুঝতে পারাও আজকের শিক্ষায় সংকট নিয়ে এসেছে। সবশেষে একথা বলি লেখক জিকরাউল হক একটা বিন্দুকে সিন্দুর দর্শনে কিংবা একটা অন্তকে অনন্তের পর্যায়ে তুলে ধরতে চেয়েছেন ঠিক যেন আমেরিকান উদ্যোক্তা ফোর্বস ম্যাগাজিনের লেখক ও প্রকাশক  ম্যালকম ফোর্বসের বক্তব্যের মতো:

“Education’s purpose is to replace an empty mind with an open one.” (—Malcolm Forbes)

অর্থাৎ শিক্ষার উদ্দেশ্য হল একটি শূন্য মনকে একটি খোলা মন দিয়ে প্রতিস্থাপন করা। 

 কিন্তু সেটাই সম্ভব হচ্ছে না। বলেই নাম্বার সর্বস্ব পুঁথি কেন্দ্রিক শিক্ষাই আমাদের জীবনের অন্তরায় হয়ে উঠেছে।



🤾

 বর্তমান শিক্ষা সমস্যা ও উত্তরণ: মুহাম্মদ জিকরাউল হক, আনন্দ প্রকাশন, সি ৮, কলেজ স্ট্রিট মার্কেট(দ্বিতল), কলকাতা-৭০০০০৭

 মূল্য-১৫০ টাকা, প্রচ্ছদ- আফসার নিজাম।




webtostory





Post a Comment